ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচনে ভোটের ৭ দিন আগে সেনা মোতায়েনের দাবি বিএনপির

সত্যের সৈনিক অনলাইনঃ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) উপনির্বাচনের সাত দিন আগে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। মঙ্গলবার বিকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা চাইব অবশ্যই এ উপনির্বাচনে সেনাবাহিনী নিয়োগ করা হোক।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য শুধু নয়, নির্বাচনের সাত দিন আগে থেকে সেনাবাহিনী মোতায়েন চাই। তিনি আরও বলেন, আমরা জোটগতভাবে নির্বাচনে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। শনিবার দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে জোটের প্রাার্থীর নাম ঘোষণা করা হবে।

ঢাকার সাবেক কমিশনার ও বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবদুল মজিদের জানাজা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মির্জা ফখরুল। তিনি জানান, সোমবার রাতে জোটের নেতারা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ওপর প্রার্থী চূড়ান্তের দায়িত্ব দিয়েছেন। তিনি যাকে মনোনয়ন দেবেন তাকে জোট থেকে সমর্থন জানানো হবে।

ডিএনসিসি উপনির্বাচনে একক প্রার্থী ঘোষণা করা হবে। নির্বাচনে জামায়াতের প্রার্থী ঘোষণার বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এটা নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না। আমরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে একটা সমাধান করব। নির্বাচনে ২০ দলীয় জোটের একক প্রার্থী থাকবে।

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা কেমন দেখছেন এমন প্রশ্ন করা হলে মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের ব্যাপারে আমাদের যে বক্তব্য সেটা একই রকম আছে। আমরা মনে করি যে, এই ইসি যে পদ্ধতিতে গঠন করা হয়েছে সেই পদ্ধতি সঠিক ছিল না।

সেখানে দল নিরপেক্ষ ব্যক্তিরা কম এসেছেন এবং বিশেষ করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার দল নিরপেক্ষ নন। এর আগে বিকাল ৩টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ডিসিসির সাবেক কমিশনার আবদুল মজিদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সাইফুল ইসলাম নীরব, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, কাজী আবুল বাশার, মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু, রাজীব আহসানসহ মহানগরের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। রোববার রাতে আবদুল মজিদ (৭০) মারা যান। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার।

১০ জানুয়ারি ২০১৮/সত্যের সৈনিক/সুলতান মাহমুদ

Leave A Reply

Your email address will not be published.