অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

বায়ু দূষণে শিশুদের মস্তিষ্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়

0 11

সত্যের সৈনিক অনলাইন : বায়ুদূষণের সঙ্গে শ্বাসতন্ত্রের রোগ হওয়ার বিষয়টি সবার জানা। কিন্তু এবার জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফ বলছে, বায়ুদূষণের কারণে শিশুদের মস্তিষ্ক স্থায়ীভাবে পুরোপুরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যেতে পারে। টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, গত মঙ্গলবার বৈজ্ঞানিক গবেষণার ভিত্তিতে ‘ডেঞ্জার ইন দ্য এয়ার’ শীর্ষক এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ইউনিসেফ।
প্রতিবেদনে বলা হয়, যে সময় ইউনিসেফ এই প্রতিবেদন প্রকাশ করল, ঠিক সে সময়েই ভারতের রাজধানী দিল্লিতে বায়ুদূষণের মাত্রা ভয়াবহ আকারে বেড়েছে। গত মাসে এই দূষণের হাত থেকে শিশুদের রক্ষা করতে সেখানকার সব স্কুল সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।
ইউনিসেফের প্রতিবেদনে বলা হয়, দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি শিশু রয়েছে। আর এই অ লে বায়ুদূষণ আন্তর্জাতিক মাত্রার (প্রতি কিউবিক মিটারে ১০ মাইক্রোগ্রাম) চেয়ে কমপক্ষে ছয় গুণ বেশি। জাতিসংঘের এই সংস্থা বলছে, সারা বিশ্বে এক বছরের নিচের প্রায় ১ কোটি ৭০ লাখ শিশু উচ্চমাত্রার দূষিত এলাকায় বাস করে। যার মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি। সেখানে প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ শিশু বাস করে। আর পূর্ব এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় ৪৩ লাখ শিশু দূষিত বাতাসে শ্বাসপ্রশ্বাস নেয়।
ইউনিসেফের প্রতিবেদনে বলা হয়, দূষিত বায়ু নানাভাবে শিশুদের মস্তিষ্কের ক্ষতি করে। শুরুতে মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহে বাধার সৃষ্টি করে। এতে নিউরো ইনফ্লামেশন হয়। এতে মস্তিষ্কে ক্ষতিকারক টক্সিক প্রবাহে বাধা দেওয়া ঝিল্লিকেও মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। এ ছাড়া দূষিত বায়ুতে থাকা ম্যাগনেটাইট শিশুর মস্তিষ্কে অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করে। এর কারণে মস্তিষ্কের ক্ষয়জনিত ভয়ংকর নিউরোডিজেনারেটিভ রোগ হয়। দূষিত বায়ু ও যেসব এলাকায় উচ্চ মাত্রায় গাড়ি চলাচল করে, সেসব এলাকার বাতাসে পলিসাইক্লিক অ্যারোমেটিক হাইড্রোকার্বন থাকে, যা মস্তিষ্কের সাদা অংশকে ধ্বংস করে দেয়। মস্তিষ্কের এই অংশই শিশুদের বিকাশ ও শেখার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক অ্যান্থনি লাক বলেন, ‘বায়ুদূষণ কেবল শিশুদের ফুসফুসের ক্ষতি করে তা নয়, বরং স্থায়ীভাবে শিশুদের বিকাশমান মস্তিষ্কের উপাদানকে ধ্বংস করে দিতে পারে। এতে শিশুর ভবিষ্যৎ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।’
ইউনিসেফের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, শিশুদের মস্তিষ্ক খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকে। হালকা টক্সিক-জাতীয় কোনো রাসায়নিকের প্রভাবে তাদের মস্তিষ্ক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এ ছাড়া দূষিত বায়ু অন্তঃসত্ত্বা নারীদের জন্যও ক্ষতিকর।

৭ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং/সত্যের সৈনিক/তুহিন রানা

Leave A Reply

Your email address will not be published.