অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা পরিকল্পিত : খসরু

0 10

সত্যের সৈনিক অনলাইন : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশে আইনের শাসন বলতে কিছু নেই। শাসক যেটা বলছে, সেটাই এখানে আইন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির ঘটনা সরকারের ‘বৃহত্তর পরিকল্পনা’র অংশ বলে মন্তব্য করেন তিনি। গতকাল সোমবার দুপুরে ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এ মন্তব্য করেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা প্রত্যাহারের দাবিতে স্বাধীনতা অধিকার আন্দোলন নামের একটি সংগঠন আলোচনা সভাটির আয়োজন করে।
আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশে বর্তমান আইনের শাসন বলতে কিছু নেই, শাসকের আইনে দেশ চলছে। রুল অব ল নেই, আছে রুলার্স ল। অর্থাৎ শাসক যেটা বলছে, সেটাই আইন।’ তিনি বলেন, বাংলাদেশে কী আশা করা যেতে পারে? শাসকের আইন যেটা হয়, সেখানে কোনো বাধানিষেধ থাকে না। শাসক তার সুবিধামতো, ইচ্ছামতো তার স্বার্থের জন্য আইন প্রণয়ন করবে, আইন প্রয়োগও করবে এবং প্রয়োজনে সংবিধানও পরিবর্তন করবে।
আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী অভিযোগ করেন, বর্তমান সরকার অনির্বাচিত। একটি অনির্বাচিত সরকার নিজের আইন প্রণয়নের জন্য সংবিধান পরিবর্তন করেছে, আইন প্রণয়নও করেছে অনির্বাচিত সংসদের মাধ্যমে এবং দেশবিরোধী আইন জনগণের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছে। নির্বাচনের পথ উন্মুক্ত করার দাবি জানিয়ে আমীর খসরু মাহমুদ বলেন, ‘একটি দেশ এভাবে চলতে পারে না। একটি দেশের মানুষ এভাবে পদে পদে বিপদগ্রস্ত হতে পারে না। তাই সরকারকে বলব, গণতন্ত্রের পথে এসে দেশের মালিকানা জনগণের হাতে ফিরিয়ে দিন। তার একমাত্র পথ একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করা। সেই পথ উন্মুক্ত করে দিন, আপনারা (ক্ষমতাসীন দল) রাজনীতিতে থাকুন।’ তিনি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির ঘটনা সরকারের ‘বৃহত্তর পরিকল্পনা’র অংশ হিসেবে অভিযোগ করেন।
আয়োজক সংগঠনের সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং/সত্যের সৈনিক/তুহিন রানা

Leave A Reply

Your email address will not be published.